আয়াতুল কুরসি | আয়াতুল কুরসি বাংলা উচ্চারণ | ayatul kursi english

আয়াতুল কুরসি | আয়াতুল কুরসি বাংলা উচ্চারণ | ayatul kursi english 

আয়াতুল কুরসী

আয়াতুল কুরসি অডিও 

আয়াতুল কুরসী বাংলা উচ্চারণ সহ | ayatul kursi in english, bangla

الله لا اله الا هو الحي القيوم – لا تاخذه سنه ولا نوم – له ما في السماوات وما في الارض- من ذا الذي يشفع عنده الا باذنه – يعلم ما بين ايديهم وما خلفهم ولا يحيطون بشيء من علمه الا بما شاء وسيا قدسيه السماوات والارض ولا يهوده حفظهما وهو العلي العظيم-

 

আয়তুল কুরসী বাংলা উচ্চারণ: ayatul kursi bangla –

আল্লাহু লা ইলাহা ইল্লা হুয়াল হাইয়ুল কাইয়ুম। লা তা’খুযুহু সিনাতু ওয়ালা নাউম। লাহু মা ফিছ্ছামা ওয়াতি ওয়ামা ফিল আরদ্বি, মান যাল্লাযী ইয়াশ্ফা’উ ইন্দাহু ইল্লা বি ইযনিহী। ইয়া’লামু মা বাইনা আইদীহিম ওয়ামা খলফাহুম। ওয়ালা ইউ হীতুনা বি শাইয়িম মিন ইলমিহী ইল্লা বিমাশাআ। ওয়াসি’আ কুরসীয়্যুহুছ্ছামা ওয়াতি ওয়াল আরদ্বি। ওয়ালা ইয়াউদুহু হিফযুহুমা, ওয়াহুওয়াল আলীয়্যুল আযীম।


ayatul kursi in english:-

allahu la ilaha illa huwal haiul kaium, la ta khujuhu sinatuo ola naul , lhu ma fissama owati oma fil ardi, manjallaji iwasfau indahu illa bi ijnihi, iwaalamu ma baina aidihim oma khalfahum, cwala iu hituna bi saiwim min ilmihi illa bimashaa, osiya kurnsiwyuhus samaowati owal ardi, owala iwauduhu hifjuhuma, owahuowal aliwyol ajim.



আয়তুল কুরসীর অর্থ:

আল্লাহ ছাড়া অন্য কোন উপাস্য নেই। তিনি জীবিত, সবকিছুর ধারক। তাকে তন্দ্রা স্পর্শ করতে পারেনা এবং নিদ্রাও নয়। আসমান ও জমিনে যা কিছু রয়েছে, সবই তার। কে আছে এমন, যে সুপারিশ করবে তার কাছে তার অনুমতি ছাড়া? দৃষ্টির সামনে কিংবা পিছনে যা কিছু রয়েছে সে সবই তিনি জানেন। তার জ্ঞান সীমা থেকে তারা কোন কিছুকেই পরিবেষ্টিত করতে পারে না, কিন্তু যতটুকু তিনি ইচ্ছা করেন। তার সিংহাসন সমস্ত আসমান ও জমিন কে পরিবেষ্টিত করে আছে। আর সেগুলোকে ধারণ করা তার পক্ষে কঠিন নয়। তিনিই সর্বোচ্চ এবং সর্বাপেক্ষা মহান।


আয়তুল কুরসির ফজিলত :

আয়াতুল কুরসীর বিশেষ ফজিলত; এ আয়াতটি কোরআনের সর্ববৃহৎ আয়াত। হাদিসে এ আয়াতের অনেক ফযিলত ও বরকত বর্ণিত রয়েছে।


“মুসনাদে আহমদ” হাদীস গ্রন্থে বর্ণিত আছে-

রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আয়াতুল করসীকে সবচাইতে উত্তম আয়াত বলে উল্লেখ্য করেছেন।


অন্য এক হাদীসে আছে, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উবাই ইবনে কাব (রাদিয়াল্লাহু তা’আলা আনহু) কে জিজ্ঞেস করেছিলেন, কোরআনের মধ্যে কোন আয়াতটি সবচাইতে বড় ও গুরুত্বপূর্ণ ?


ওবাই ইবনে কাব (রাদিয়াল্লাহু তা’আলা আনহু) আরজ করলেন ইয়া রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তা হচ্ছে আয়াতুল কুরসি।


রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তার কথার সমর্থন করে বললেন, হে আবুল মাঞ্জার। তোমাকে উত্তম জ্ঞানের জন্য ধন্যবাদ।

আরো পড়ুন>> সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ম 


“নাসায়ী শরীফ” এর এক বর্ণনাতে রয়েছে-

যে হুজুর আকরাম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এরশাদ করেছেন, যে ব্যক্তি প্রত্যেক ফরজ নামাজের পর আয়াতুল-কুরসী নিয়মিত পাঠ করে, তার জন্য বেহেস্তের প্রবেশ পথে একমাত্র মৃত্যু ছাড়া অন্য কোন অন্তরায় / বাধা থাকে না অর্থাৎ মৃত্যুর সাথে সাথেই সে বেহেস্তের ফলাফল এবং আরাম-আয়েশ উপভোগ করতে শুরু করবে।

আরো পড়ুন>> দুরুদে তুনাজ্জিনা বাংলা উচ্চারণ ও অর্থ 


আয়াতুল কুরসীর সংক্ষিপ্ত বিষয়বস্তুঃ

এ আয়াতে মহান পরোয়ারদেগার আল্লাহ জাল্লা শানুহুর একক অস্তিত্ব, তাওহীদ ও গুণাবলীর বর্ণনা এক আশ্চর্য এবং অনুপম পদ্ধতিতে দেয়া হয়েছে। যাতে আল্লাহর অস্তিত্ববান হওয়া, জীবিত হওয়া, শ্রবণকারী হওয়া, দর্শক হওয়া, বাকশক্তি সম্পূর্ণ হাওয়া , তার সত্তার অপরিহার্যতা, তার অসীম অনন্তকাল পর্যন্ত থাকা, সমগ্র বিশ্বের স্রষ্টা ও উদ্ভাবক হওয়া, যাবতীয় ক্রিয়া- প্রতিক্রিয়ার প্রভাব থেকে মুক্ত হওয়া, সমগ্র বিশ্বের একচ্ছত্র অধিপতি হওয়া, এমন শ্রেষ্ঠ তো মহত্বের অধিকারী হওয়া, যাতে তার অনুমতি ছাড়া তার সামনে কেউ কোন কথা বলতে না পারে।

আরো পড়ুন>> দুরুদ শরীফ বাংলা উচ্চারণ


এমন পরিপূর্ণ ক্ষমতার অধিকারী হওয়া যাতে সমগ্র বিশ্ব ও তার যাবতীয় বস্তুনিচয়কে সৃষ্টি করা ও সেগুলোর রক্ষণাবেক্ষণ এবং তাদের শৃঙ্খলা বজায় রাখতে গিয়ে তাকে কোন ক্লান্তি বা পরিশ্রান্তির সম্মুখীন হতে হয় না। এমন ব্যাপক জ্ঞানের অধিকারী হওয়া, কোন প্রকাশ্য, কিংবা গোপন, বস্তু কিংবা কোন অনু-পরমাণুর বিন্দু-বিসর্গও যাতে বাদ পড়তে না পারে। এই হচ্ছে আয়াতটির মোটামোটি ও সংক্ষিপ্ত বিষয়বস্তু।  

আরো পড়ুন>> ইসলামীক জানা অজানা কিছু প্রশ্নের উত্তর

***ভালো লাগলে অবশ্যই লাইক ও ফলো করে আমাদের সাথে থাকুন এবং সওয়াবেরে উদ্দেশ্যে আপনার বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করে দিন।


Leave a Reply